ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৫-এর মঞ্চে ভারতের পারফরম্যান্সের ব্যাপারে জেনে নিন

সেপ্টে. 25, 2023

No tags for this post.
Spread the love

Team India. (Photo Source: Twitter)

অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড যৌথভাবে ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৫-এর আয়োজন করেছিল। ২০১১ সালের ওডিআই বিশ্বকাপে ট্রফি জেতার পর এই বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিল ভারত। এই টুর্নামেন্টটিতে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

ওডিআই বিশ্বকাপ ২০২৩-এর ফাইনালে অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিল। এই ম্যাচটিতে খুব সহজেই জয় পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড ১৮৩ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। অস্ট্রেলিয়া ৩৩.১ ওভারে ৩ উইকেটে ১৮৬ রানে পৌঁছে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। নিউজিল্যান্ডকে পরাজিত করার মাধ্যমে পঞ্চমবারের জন্য ওডিআই বিশ্বকাপের ট্রফি জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া।

১. ভারত বনাম পাকিস্তান (ম্যাচ ৪)

IND vs PAK. (Photo Source: Twitter)

২০১৫ সালের বিশ্বকাপে নিজেদের প্ৰথম ম্যাচে পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছিল ভারত। এই ম্যাচটিতে ৭৬ রানে জয় পেয়েছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন দল। ভারত প্রথমে ব্যাটিং করে স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩০০ রান তুলেছিল। বিরাট কোহলি ১২৬ বলে ১০৭ রানের একটি অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন। সোহেল খান ১০ ওভারে ৫৫ রান দিয়ে ৫টি উইকেট শিকার করেছিলেন।

পাকিস্তান রান তাড়া করতে নেমে ২২৪ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। মিসবাহ-উল-হক দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছিলেন। তিনি ৮৪ বলে ৭৬ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলেছিলেন। মহম্মদ শামি ৯ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন। এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন বিরাট কোহলি।

২. ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা (ম্যাচ ১৩)

IND vs SA. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটিতে ভারতীয় দল অনেক বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছিল। ভারত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩০৭ রান করেছিল। শিখর ধাওয়ান ১৪৬ বলে ১৩৭ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেছিলেন। মর্নি মরকেল ২টি উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছিলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র ১৭৭ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল এবং ভারত ১৩০ রানে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। ফাফ ডু প্লেসিস ৭১ বলে ৫৫ রান করতে সক্ষম হয়েছিলেন। রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৩টি উইকেট শিকার করেছিলেন। এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন শিখর ধাওয়ান।

৩. ভারত বনাম সংযুক্ত আরব আমিরশাহি

IND vs UAE. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটি ভারত খুব সহজেই জিতে নিয়েছিল। প্ৰথমে ব্যাটিং করতে নেমে মাত্র ১০২ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল সংযুক্ত আরব আমিরশাহি। রবিচন্দ্রন অশ্বিন ১০ ওভারে মাত্র ২৫ রান দিয়ে ৪টি উইকেট শিকার করেছিলেন। রবীন্দ্র জাদেজা ২টি উইকেট পেয়েছিলেন।

ভারত ১৮.৫ ওভারে ১ উইকেটে ১০৪ রানে পৌঁছে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। রোহিত শর্মা এবং বিরাট কোহলি যথাক্রমে ৫৫ বলে ৫৭ রান এবং ৪১ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন। এই ম্যাচে রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে ম্যাচসেরার পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল।

৪. ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ (ম্যাচ ২৮)

IND vs WI. (Photo Source: Twitter)

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৪ উইকেটে পরাজিত করেছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্ৰথমে ব্যাটিং করে স্কোরবোর্ডে ৪৪.২ ওভারে ১০ উইকেটে ১৮২ রান তুলতে সক্ষম হয়েছিল। জেসন হোল্ডার দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছিলেন। তিনি ৬৪ বলে ৫৭ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলেছিলেন। মহম্মদ শামি ৩টি উইকেট নিয়েছিলেন। উমেশ যাদব এবং রবীন্দ্র জাদেজা ২টি করে উইকেট পেয়েছিলেন।

ভারত ৬৫ বল বাকি থাকতেই ৬ উইকেটে ১৮৫ রানে পৌঁছে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। অধিনায়ক এমএস ধোনি ৫৬ বলে ৪৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন। এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন মহম্মদ শামি।

৫. ভারত বনাম আয়ারল্যান্ড (ম্যাচ ৩৪)

IND vs IRE. (Photo Source: Twitter)

আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৮ উইকেটে জয় পেয়েছিল ভারতীয় দল। আয়ারল্যান্ড ৪৯ ওভারে ২৫৯ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। নিল ও’ব্রায়েন ৭৫ বলে ৭৫ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলেছিলেন। মহম্মদ শামি ৩টি উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছিলেন।

ভারত মাত্র ৩৬.৫ ওভারে ২ উইকেটে ২৬০ রানে পৌঁছে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। শিখর ধাওয়ান ৮৫ বলে ১০০ রানের একটি দারুণ ইনিংস খেলেছিলেন এবং ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন।

৬. ভারত বনাম জিম্বাবুয়ে (ম্যাচ ৩৯)

IND vs ZIM. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটিতে ভারত ৬ উইকেটে জয় পেয়েছিল। জিম্বাবুয়ে প্ৰথমে ব্যাটিং করেছিল এবং স্কোরবোর্ডে ৪৮.৫ ওভারে ১০ উইকেটে ২৮৭ রান তুলেছিল। ব্রেন্ডন টেলর ১১০ বলে ১৩৮ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেছিলেন। মহম্মদ শামি, উমেশ যাদব এবং মোহিত শর্মা ৩টি করে উইকেট নিয়েছিলেন।

ভারত ৮ বল বাকি থাকতেই ৪ উইকেটে ২৮৮ রানে পৌঁছে গিয়েছিল এবং ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। সুরেশ রায়না ১০৪ বলে অপরাজিত ১১০ রানের একটি অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন এবং ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন।

৭. ভারত বনাম বাংলাদেশ (দ্বিতীয় কোয়ার্টার-ফাইনাল)

IND vs BAN. (Photo Source: Twitter)

ভারতীয় দল প্ৰথমে ব্যাটিং করে স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩০২ রান তুলেছিল। রোহিত শর্মা ১২৬ বলে ১৩৭ রানের একটি দুর্ধর্ষ ইনিংস খেলেছিলেন। তাসকিন আহমেদ ৩টি উইকেট শিকার করেছিলেন।

বাংলাদেশের ইনিংস মাত্র ১৯৩ রানে শেষ হয়ে গিয়েছিল। উমেশ যাদব ৯ ওভারে মাত্র ৩১ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট শিকার করেছিলেন। মহম্মদ শামি এবং রবীন্দ্র জাদেজা ২টি করে উইকেট নিয়েছিলেন। রোহিত শর্মাকে এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল।

৮. ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া (দ্বিতীয় সেমিফাইনাল)

IND vs AUS. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটিতে এসে ভারতীয় দল আর তাদের জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে পারেনি। অস্ট্রেলিয়া প্ৰথমে ব্যাটিং করতে নেমে স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩২৮ রান তুলেছিল। স্টিভ স্মিথ ৯৩ বলে ১০৫ রানের একটি দারুণ ইনিংস খেলেছিলেন। উমেশ যাদব ৯ ওভারে ৭২ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন।

ভারতের ইনিংস ২৩৩ রানে শেষ হয়ে গিয়েছিল। অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছিলেন। তিনি ৬৫ বলে ৬৫ রান করতে সক্ষম হয়েছিলেন। জেমস ফকনার ৩টি উইকেট নিয়েছিলেন। মিচেল স্টার্ক এবং মিচেল জনসন ২টি করে উইকেট শিকার করেছিলেন। এই ম্যাচটিতে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন স্টিভ স্মিথ।

The post ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৫-এর মঞ্চে ভারতের পারফরম্যান্সের ব্যাপারে জেনে নিন appeared first on CricTracker Bengali.

Subscribe to Telegram
শীঘ্রই শুরু হতে যাচ্ছে আইসিসি বিশ্বকাপ! প্রারম্ভিক একচেটিয়া উপহারের জন্য এখনই MCW-তে সদস্যতা নিন!
অ্যাটলেটিকো ডি মাদ্রিদ আনুষ্ঠানিক আঞ্চলিক পার্টনার হিসাবে মেগা ক্যাসিনো ওয়ার্ল্ড (MCW) ঘোষণা করেছে।
বুন্দেসলিগা ইন্টারন্যাশনাল এশিয়ার মেগা ক্যাসিনো ওয়ার্ল্ডের সাথে একটি আঞ্চলিক অংশীদারিত্বে সম্মত হয়েছে
প্রিটোরিয়া ক্যাপিটালস SA20 এর দ্বিতীয় সিজনের জন্য প্রধান অংশীদার হিসাবে মেগা ক্যাসিনো ওয়ার্ল্ডকে ঘোষণা করেছে
Mega Casino World Anrich Nortje কে নতুন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ঘোষণা করেছে
MCW Sports Joins Gladiators’ Family as Platinum Sponsor for PSL8
MCW Sports - Ambassador