ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৯-এর মঞ্চে ভারতের পারফরম্যান্সের ব্যাপারে জেনে নিন

সেপ্টে. 26, 2023

No tags for this post.
Spread the love

Team India. (Photo Source: Twitter)

ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস যৌথভাবে ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৯-এর আয়োজন করেছিল। এই বিশ্বকাপে ভারত সেমিফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছতে পেরেছিল। এই টুর্নামেন্টটিতে বিরাট কোহলি ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৯-এর ট্রফি জিতেছিল ইংল্যান্ড। তারা ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল। দুই দলই ৫০ ওভার ব্যাটিং করে ২৪১ রান করতে সক্ষম হয়েছিল। এরপর সুপার ওভারেও উভয় দল সমান সংখ্যক রান করেছিল। তবে নিউজিল্যান্ডের থেকে বেশি সংখ্যক বাউন্ডারি মারায় ম্যাচটিতে জয়ী হয়েছিল ইংল্যান্ড। এটি ছিল ইংল্যান্ডের প্ৰথম বিশ্বকাপ ট্রফি।

১. ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা (ম্যাচ ৮)

IND vs SA. (Photo Source: Twitter)

ভারত এই বিশ্বকাপে জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল। দক্ষিণ আফ্রিকা ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২২৭ রান করেছিল। ক্রিস মরিস দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছিলেন। তিনি ৩৪ বলে ৪২ রান করতে সক্ষম হয়েছিলেন। যুজবেন্দ্র চাহাল ১০ ওভারে ৫১ রান দিয়ে ৪টি উইকেট শিকার করেছিলেন।

ভারত ১৫ বল বাকি থাকতেই ৪ উইকেটে ২৩০ রানে পৌঁছে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। রোহিত শর্মা ১৪৪ বলে অপরাজিত ১২২ রানের একটি অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন এবং ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন। কাগিসো রাবাডা ২টি উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছিলেন।

২. ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া (ম্যাচ ১৪)

IND vs AUS. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটিতে ভারতীয় দল ৩৬ রানে জয় পেয়েছিল। প্ৰথমে ব্যাটিং করে স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩৫২ রান তুলেছিল বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দল। শিখর ধাওয়ান ১০৯ বলে ১১৭ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছিলেন। মার্কাস স্টোইনিস ২টি উইকেট পেয়েছিলেন।

অস্ট্রেলিয়া রান তাড়া করতে নেমে ৩১৬ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। স্টিভ স্মিথ ৭০ বলে ৬৯ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলেছিলেন। অ্যালেক্স কেরি ৩৫ বলে ৫৫ রান করে অপরাজিত ছিলেন। ভুবনেশ্বর কুমার এবং জসপ্রীত বুমরাহ ৩টি করে উইকেট শিকার করেছিলেন। এই ম্যাচটিতে ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন শিখর ধাওয়ান।

৩. ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড (ম্যাচ ১৮)

IND vs NZ. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে শুরু করা সম্ভব হয়নি। তাই ভারত এবং নিউজিল্যান্ড উভয় দলই ১ পয়েন্ট করে পেয়েছিল।

৪. ভারত বনাম পাকিস্তান (ম্যাচ ২২)

IND vs PAK. (Photo Source: Twitter)

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৮৯ রানে জিতেছিল বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দল। ভারত প্ৰথমে ব্যাটিং করে স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩৩৬ রান তুলতে সক্ষম হয়েছিল। রোহিত শর্মা ১১৩ বলে ১৪০ রানের একটি দুর্ধর্ষ ইনিংস খেলেছিলেন। মহম্মদ আমির ৩টি উইকেট শিকার করেছিলেন।

বৃষ্টির কারণে দ্বিতীয় ইনিংসে ওভার কমে ৪০ হয়ে গিয়েছিল। পাকিস্তানের সামনে ৩০২ রানের লক্ষ্য ছিল। কিন্তু তারা ৪০ ওভারে ৬ উইকেটে ২১২ রান করতে সক্ষম হয়েছিল। ফখর জামান ৭৫ বলে ৬২ রান করেছিলেন। বিজয় শঙ্কর, হার্দিক পান্ডিয়া এবং কুলদীপ যাদব ২টি করে উইকেট নিয়েছিলেন। এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন রোহিত শর্মা।

৫. ভারত বনাম আফগানিস্তান (ম্যাচ ২৮)

IND vs AFG. (Photo Source: Twitter)

ভারতীয় দল প্ৰথমে ব্যাটিং করতে নেমে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২২৪ রানে পৌঁছতে পেরেছিল। বিরাট কোহলি ৬৩ বলে ৬৭ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলেছিলেন। কেদার যাদব ৬৮ বলে ৫২ রান করেছিলেন। গুলাবদিন নাইব এবং মহম্মদ নবি ২টি করে উইকেট শিকার করেছিলেন।

আফগানিস্তানের ইনিংস ২১৩ রানে শেষ হয়ে গিয়েছিল। মহম্মদ শামি এই ম্যাচটিতে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। তিনি মোট ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন। অন্যদিকে, জসপ্রীত বুমরাহ, যুজবেন্দ্র চাহাল এবং হার্দিক পান্ডিয়া ২টি করে উইকেট পেয়েছিলেন। এই ম্যাচটিতে বুমরাহকে ম্যাচসেরার পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল।

৬. ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ (ম্যাচ ৩৪)

IND vs WI. (Photo Source: Twitter)

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে অনেক বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছিল ভারত। বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দল স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৬৮ রান তুলেছিল। কোহলির ব্যাট থেকে ৮২ বলে ৭২ রানের একটি সুন্দর ইনিংস এসেছিল। কেমার রোচ ৩টি উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছিলেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ মাত্র ১৪৩ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। এই ম্যাচেও খুব ভালো বোলিং পারফরম্যান্সের প্রদর্শন করেছিলেন মহম্মদ শামি। তিনি ৬.২ ওভারে মাত্র ১৬ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন। এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন বিরাট কোহলি।

৭. ভারত বনাম ইংল্যান্ড (ম্যাচ ৩৮)

IND vs ENG. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটিতে এসে ভারতীয় দলের জয়ের ধারা ভেঙে গিয়েছিল। ইংল্যান্ড ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩৩৭ রান করেছিল। জনি বেয়ারস্টো ১০৯ বলে ১১১ রানের একটি অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন। বেন স্টোকসের ব্যাট থেকে ৫৪ বলে ৭৯ রানের একটি ঝোড়ো ইনিংস এসেছিল। মহম্মদ শামি ১০ ওভারে ৬৯ রান দিয়ে ৫টি উইকেট তুলে নিয়েছিলেন।

ভারত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩০৬ রানে পৌঁছতে পেরেছিল। রোহিত শর্মা ১০৯ বলে ১০২ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলেছিলেন, কিন্তু দলকে জয় এনে দেওয়ার জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। লিয়াম প্লাঙ্কেট ৩টি উইকেট শিকার করেছিলেন। এই ম্যাচে ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন জনি বেয়ারস্টো।

৮. ভারত বনাম বাংলাদেশ (ম্যাচ ৪০)

IND vs BAN. (Photo Source: Twitter)

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ২৮ রানে জয় পেয়েছিল ভারতীয় দল। প্ৰথমে ব্যাটিং করে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ৩১৪ রানে পৌঁছেছিল ভারত। রোহিত শর্মা ৯২ বলে ১০৪ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেছিলেন। মুস্তাফিজুর রহমান ১০ ওভারে ৫৯ রান দিয়ে ৫টি উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছিলেন।

বাংলাদেশ ৪৮ ওভারে ১০ উইকেটে ২৮৬ রান করতে পেরেছিল। সাকিব আল হাসান এবং মহম্মদ সাইফুদ্দিন যথাক্রমে ৭৪ বলে ৬৬ রান এবং ৩৮ বলে অপরাজিত ৫১ রান করেছিলেন। জসপ্রীত বুমরাহ ১০ ওভারে ৫৫ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন। এই ম্যাচটিতে রোহিত শর্মাকে ম্যাচসেরার পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল।

৯. ভারত বনাম শ্রীলঙ্কা (ম্যাচ ৪৪)

IND vs SL. (Photo Source: Twitter)

এই ম্যাচটিতে শ্রীলঙ্কা প্ৰথমে ব্যাটিং করেছিল এবং স্কোরবোর্ডে ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৬৪ রান তুলেছিল। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ১২৮ বলে ১১৩ রানের একটি অসাধারণ ইনিংস খেলেছিলেন। জসপ্রীত বুমরাহ ১০ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নিয়েছিলেন।

ভারত ৩৯ বল বাকি থাকতেই ৩ উইকেটে ২৬৫ রানে পৌঁছনোর মাধ্যমে ম্যাচটি জিতে নিয়েছিল। কেএল রাহুল এবং রোহিত শর্মা দুজনেই শতরান করেছিলেন। রাহুল ১১৮ বলে ১১১ রান করেছিলেন। রোহিত ৯৪ বলে ১০৩ রান করেছিলেন এবং ম্যাচসেরার পুরস্কার পেয়েছিলেন।

১০. ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড (প্ৰথম সেমিফাইনাল)

IND vs NZ. (Photo Source: Twitter)

সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে পরাজিত হয়ে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছিল ভারত। নিউজিল্যান্ড ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৩৯ রান করেছিল। কেন উইলিয়ামসন এবং রস টেলর যথাক্রমে ৯৫ বলে ৬৭ রান এবং ৯০ বলে ৭৪ রান করেছিলেন। ভুবনেশ্বর কুমার ৩টি উইকেট পেয়েছিলেন।

ভারত রান তাড়া করতে নেমে ২২১ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল। ভারতীয় দলের টপ অর্ডার পুরোপুরিভাবে ব্যর্থ হয়েছিল। রবীন্দ্র জাদেজা ৫৯ বলে ৭৭ রানের একটি দারুণ ইনিংস খেলেছিলেন, কিন্তু ভারতের জয়ের জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। এমএস ধোনি ৭২ বলে ৫০ রান করেছিলেন। ম্যাট হেনরি ১০ ওভারে ৩৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নিয়েছিলেন এবং ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছিলেন।

The post ওডিআই বিশ্বকাপ ২০১৯-এর মঞ্চে ভারতের পারফরম্যান্সের ব্যাপারে জেনে নিন appeared first on CricTracker Bengali.

Subscribe to Telegram
শীঘ্রই শুরু হতে যাচ্ছে আইসিসি বিশ্বকাপ! প্রারম্ভিক একচেটিয়া উপহারের জন্য এখনই MCW-তে সদস্যতা নিন!
অ্যাটলেটিকো ডি মাদ্রিদ আনুষ্ঠানিক আঞ্চলিক পার্টনার হিসাবে মেগা ক্যাসিনো ওয়ার্ল্ড (MCW) ঘোষণা করেছে।
বুন্দেসলিগা ইন্টারন্যাশনাল এশিয়ার মেগা ক্যাসিনো ওয়ার্ল্ডের সাথে একটি আঞ্চলিক অংশীদারিত্বে সম্মত হয়েছে
প্রিটোরিয়া ক্যাপিটালস SA20 এর দ্বিতীয় সিজনের জন্য প্রধান অংশীদার হিসাবে মেগা ক্যাসিনো ওয়ার্ল্ডকে ঘোষণা করেছে
Mega Casino World Anrich Nortje কে নতুন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে ঘোষণা করেছে
MCW Sports Joins Gladiators’ Family as Platinum Sponsor for PSL8
MCW Sports - Ambassador